ডিজেবল ফেসবুক আইডি ফিরে পাওয়ার উপায় ২০২২

ডিজেবল ফেসবুক আইডি ফিরে পাওয়ার উপায় ২০২২: সময়ের পরিক্রমায় বাড়ছে মানুষ, সেই সাথে বাড়ছে ফেসবুক একাউনন্টের সংখ্যা। আমাদের অগোচরে তার সাথে বৃদ্ধি পাচ্ছে ফেক ফেসবুক আইডির সংখ্যা। ফেসবুক আইডি নষ্ট হয়ে যাওয়াডিজেবল হয়ে যাওয়া কিংবা ব্যান করে দেওয়া – প্রায়সই এমন অসংখ্য অনাকাঙ্ক্ষিত ব্যাপারের মুখোমুখি হতে হয় ফেসবুক ব্যবহারকারীদের। মূলত ফেসবুক এর কমিনিউটি স্ট্যান্ডার্ডের বিপক্ষে কোনো অ্যাকটিভিটি দেখলে ফেসবুক থেকে টেম্পরারি বা পারমানেন্টলি ফেসবুক আইডিটি ব্যান বা ব্লক করে দেয়।

ফেসবুক ডিজেবল আইডি ফিরে পাওয়ার উপায়

ফেসবুক এর কমিনিউটি স্ট্যান্ডার্ড পেজে গেলে অনেক তথ্য থাকলেও বিশাল হওয়ার ফলে তা পড়ে সকলের পক্ষে বোঝা সম্ভব নয়। মূলত কিছু নির্দিষ্ট বৈশিষ্ট্যযুক্ত কনটেন্ট ফেসবুকে পোস্ট করা সম্পূর্ণ ফেসবুক এর কমিনিউটি স্ট্যান্ডার্ড বিরোধী।

সারা বিশ্বের সবচেয়ে নাম করা সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম হলো ফেসবুক। বর্তমানে ফেসবুক ব্যবহার ব্যবহার করেন না এমন মানুষ নেই বললে চলে। 

আর এই ফেক একাউন্টের কারণে প্রতিদিন হাজার হাজার ফেসবুক আইডি ডিজেবল হয়ে যাচ্ছে। এখন আপনার ফেসবুক আইডি যদি ডিজেবল হলে থাকে তাহালে চিন্তা করবেন কারণআজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনাদের জানানোর চেষ্টা করবো কিভাবে আপনি আপনার ডিজেবল হওয়া ফেসবুক একাউন্টটি ফেরত পেতে পারেন।

ডিজেবল আইডি ফিরে পাওয়ার উপায়

ফেসবুক আইডি ডিজেবল হয়ে গেলে ফিরে পাওয়া অনেক কষ্টকর ব্যাপার। আপনার facebook account যদি কোনো সন্দেহজনক কোনো কিছু দেখে তাহালে সেই account disabled করে দেয়। এজন্য অনেকের ফেক একাউন্ট না হওয়ার সত্ত্বেও অরজিনাল একাউন্ট এই সমস্যার কারণে আইডি ডিজেবল হয়ে যাচ্ছে। তারা এই আইডি রিকভার করতে অনেক সমস্যার মুখে পড়ছেন।

আপনার ব্যান হওয়া ফেসবুক আইডি ফিরে পাওয়া সম্ভব হবে কিনা তা নির্ভর করছে ঠিক কী কারণে আপনার একাউন্টটি ব্যান করা হয়েছে। অনেক সময় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ কয়েকদিনের জন্য আইডি ডিজেবল করে থাকে।

প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধ উত্তম। তাই প্রথমেই জেনে নিবো কি সব কারণে ব্যান বা ডিজেবল হয়ে যেতে পারে আপনার ফেসবুক আইডি। এরপর আমরা দেখব ফেসবুক আইডি ব্যান হলে ফিরিয়ে আনবেন কিভাবেসে সম্পর্কে বিস্তারিত।

ফেসবুক আইডি ডিজেবল কেন হয়

ফেসবুক আইডি ডিজেবল হওয়ার অনেকগুলো কারণের মধ্যে অন্যতম কিছু কারণ হলো ফেক একাউন্ট তৈরি করাহট ক্রাইম প্রমোটফেসবুক প্রাইভেসি লংঘন করা/community standards, কেউ আপনার একাউন্টে রিপোর্ট দিলেপর্নোগ্রাফি কনটেন্ট পোষ্ট করা সহ আরো বিভিন্ন কারণে ফেসবুক আইডি ডিজেবল করে দেয়।

আমাদের আইডি গুলো ডিজেবল হয়ে গেলে আমরা মনি করি মনে করি সারা জীবনের জন্য আইডি ডিজেবল হয়ে গেছেকিন্ত বিষয়টা তেমন না।

অনেক সময় দেখা যায় কোনো সুরক্ষার কারণে সাময়িক সময়ের জন্য (temporary) ফেসবুক আইডি ডিজেবল করে দেয়। এখানে আপনার নিজের পরিচয় (identify) প্রমান করলে ফেসবুক ডিজেবল আইডি ফিরে পাবেন।

ফেসবুক আইডি ডিজেবল হওয়ার অনেকগুলো কারণের মধ্যে অন্যতম কিছু কারণ হলো:

হুমকি ও সহিংসতার ইংগিত দেয়এমন যেকোনো ধরনের কনটেন্ট ফেসবুকে সম্পূর্ণরুপে নিষিদ্ধ। উল্লেখ্য যে ফেসবুক এর সিস্টেম “সাধারণ বার্তা”  “সহিংস আচরণপূর্ণ বার্তা” এর মধ্যে পার্থক্য বুঝতে সক্ষম। 

  • সন্ত্রাসী কার্যকলাপ
  • দলবদ্ধ ঘৃণা
  • গণহত্যা বা সিরিয়াল কিলিং
  • মানব পাচার
  • দলবদ্ধ সহিংসতা ও অপরাধমূলক কার্যকলাপ
  • রেগুলেটেড পণ্য

  • ওপিওডের মতো রেগুলেটেড পণ্য সম্পর্কে ফেসবুকে এড দেখানোর অনুমতি সম্পর্কে জানতে চেয়ে ক্যাপিটল হিলে ফেসবুকের সিইও মার্ক জাকারবার্গ কে ডেকে পাঠানো হয়। ড্রাগসনন-মেডিক্যাল ড্রাগসআগ্নেয়াস্ত্রগোলাবারুদ ও একই ধরনের অনেক পণ্য সম্পর্কে ফেসবুক এর নিষেধাজ্ঞা থাকলেও ফেসবুক এটি জানিয়ে দিয়েছে যে আগ্নেয়াস্ত্র এর মত বিষয়ে আলোচনা ফেসবুকে করা যাবে।
  • এছাড়াও অপরাধের প্রচার করলে কিংবা দলবদ্ধ হয়ে কারো বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়ানোকেও ফেসবুক এর কমিনিউটি স্ট্যান্ডার্ড এর বিরোধী বলে উল্লেখ করা হয়েছে।
  • ফেসবুক এর কমিনিউটি গাইডলাইনস এর ‘সেফটি’ সেকশনে ফেসবুক জানিয়েছে জননিরাপত্তার প্রকৃত বা সরাসরি ক্ষতি ক্ষতির জন্য দায়ী কনটেন্ট ব্যানঅ্যাকাউন্ট ডিসেবলএমনকি প্রয়োজনে আইন নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থার সাথেও কাজ করবে ফেসবুক। এছাড়াও আত্মহত্যা কিংবা আত্মঘাতী কনটেন্ট পোস্ট করলেও সে ক্ষেত্রে ব্যবস্থা নিবে ফেসবুক। ফেসবুক এ আরো ব্যান করা হবে।
  • চাইল্ড ন্যুডিটি (যেমনঃ বাচ্চাদের নগ্ন ছবিএমনকি ভালো মনোভাব নিয়ে করা পোস্ট 
  • যৌন সহিংসতার ছবি
  • ব্যাক্তিগত পর্যায়ে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে কাউকে হেয় করা বা লজ্জা দেওয়ার উদ্দেশ্যে করা পোস্ট
  • আর্থিক বা শারীরিক ক্ষতি করতে সক্ষম অন্যের এমন ব্যাক্তিগত তথ্য পোস্ট  
  • আপত্তিকর কনটেন্ট 
  • ঘৃণাবাচক কনটেন্ট পোস্ট
  • দৃশ্যমান সহিংসতা যা “সহিংসতাকে প্রোমোট করে বা অন্যের কষ্ট বা অপমানকে উদযাপন করে।” অবশ্য “কোনো সমস্যা সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করে” এই ধরনের কনটেন্ট পোস্ট করা যাবে। এই ধরনের ক্ষেত্রে ফেসবুক দৃশ্যমান কনটেন্ট সম্পর্কে অপ্রাপ্তবয়স্কদের একটি সচেতনতামূলক বার্তা দেখানো হবে
  • এডাল্ট ন্যুডিটি ও সেক্সুয়াল অ্যাকটিভিটি 
  • গুরুতর শারীরিক বা মানসিক ক্ষতির শিকার ব্যক্তিদের লক্ষ্য করে “নিষ্ঠুর এবং সংবেদনশীল” বলে বিবেচিত হওয়া কনটেন্ট।
  • এছাড়াও ফেসবুক এর রাডারে সন্দেহজনক বলে বিবেচিত হওয়া অ্যাকাউন্টের সাথে যোগাযোগ এর কারণেও ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যান বা ডিসেবল হতে পারে।
  • তথ্যের অসত্যতা – ডিজেবল ফেসবুক আইডি সমস্যার অন্যতম কারণ 
  • স্প্যাম (লাইকফলোয়ার বা শেয়ার পেতে পোস্ট করা বিভ্রান্তিকর বা ভুল তথ্য)
  • মিসপ্রেজেন্টেশন – ফেসবুক ব্যবহারে একজন বাস্তব ও যাচাইযোগ্যভাবে পরিচিত হতে হবে
  • একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী যা কিছু পোস্ট করেনতার স্বত্বাধিকার তিনি নিজেই সংরক্ষণ করে থাকেন। ফেসবুকে পোস্ট করা কোনো কনটেন্ট এর মালিকানা ফেসবুক নয়বরং এর পোস্টদাতার। এছাড়াও নিজের আইনি নামেই ফেসবুক ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছে ফেসবুক নিজেই। এক্ষেত্রে ফেসবুক একাউন্ট লক হয়ে গেলেও ভেরিফিকেশন এর মাধ্যমে ফিরে পাওয়া সম্ভব।
  • তবে একই নিয়মের বিপরীত নিয়ম হচ্ছে কোনো ফেসবুক ব্যবহারকারী যদি কোনো পোস্টের আইনত মালিক না হওয়ার পরেও তা পোস্ট করে থাকেন সেক্ষেত্রে ফেসবুক উক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবে। কপিরাইটট্রেডমার্ক ও অন্যান্য আইনি অধিকার ফেসবুক এর ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য।
  • অতিরিক্ত ব্যবহারের ফলেও অ্যাকসেস হারাতে পারেন আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টের। তবে আপনার একাউন্ট দীর্ঘদীন যাবত ব্যবহার না করলে সেক্ষেত্রে ফেসবুক অ্যাকাউন্টের কোনো ধরনের ক্ষতি হয়না। এক দিনে অতিরিক্ত সংখ্যক পোস্ট শেয়ার করা কিংবা ফ্রেন্ড রিকুয়েস্ট পাঠানোও হতে পারে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ব্যান বা ডিজেবল এর কারণ।
  • ১৩ বছরের কম বয়সীদের ফেসবুক আইডির তৎক্ষনাৎ অপসারণ
  • শিশু নির্যাতনের ছবি অপসারণের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে অনুরোধ (যেমনঃ প্রাপ্তবয়স্কের দ্বারা মারধর করাশ্বাসরোধ করাইত্যাদি)

ডিজেবল হওয়া ফেসবুক আইডি ফিরিয়ে আনার উপায়

উপরোক্ত কোনো কারণ দেখিয়ে যদি ফেসবুক ভুল করে আপনার অ্যাকাউন্ট ডিসেবল বা ব্যান করে দেয়সেক্ষেত্রে একটি ফরম পূরণ করে ব্যান বা ডিজেবল হওয়া ফেসবুক আইডি ফিরিয়ে আনতে পারবেন।

  • ফেসবুক আইডি ডিসেবল হয়ে গেলে এখানে ক্লিক করে ফর্মটি পূরণ করে ব্যান বা ডিজেবল হওয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ফিরিয়ে আনার আবেদন করতে পারনে।
  • এই ফরমটি খুব সাধারণ। ব্যাসিক কিছু তথ্য চাওয়া হয়েছে এখানে। এর মধ্যে আপনার ফেসবুক ইমেইল এড্রেস বা ফোন নম্বরপুরো নাম এবং আইডি কার্ড চাওয়া হয়েছে। এই আইডি হতে পারে ন্যাশনাল আইডি কার্ডপাসপোর্টড্রাইভিং লাইসেন্স প্রভৃতি। আপনার এসব আইডি না থাকলে শক্তিশালী এবং সঠিক অন্যান্য আইডিও তারা রিভিউ করতে পারে।
  •  এই লিংক থেকে জেনে নিন ফেসবুক ঠিক কোন কোন আইডি গ্রহণ করে থাকে। মনে রাখবেনফেসবুক একাউন্ট ডিজেবল হওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে উপরোক্ত ফরমে আবেদন করতে হবে।  
  • এরকম সাময়িক ব্যান করার পরেও আপনার একাউন্ট থেকে যদি ফেসবুকে নিষিদ্ধ কাজ করা হয় তাহলে আপনার একাউন্ট পুরোপুরি বন্ধ করে দেয়া হবে। অনেক সময় ফেসবুকের সিস্টেমে ত্রুটির কারণে অনেকের ফেসবুক আইডি ডিজেবল হয়ে যায়। সেসব ক্ষেত্রে উপরে দেয়া নিয়মে আপিল বা আবেদন করলে ফেসবুক আবার আইডি ফিরিয়ে দেয়।

আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ। এই ইনফোটি ভালো লাগলে শেয়ার করতে ভুলবেন না আর আপনার মূল্যবান মতামত জানাতে কমেন্ট করুন।

Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url